1. admin@zzna.ru : admin@zzna.ru :
  2. md.masudrana2008@gmail.com : admi2017 :
  3. info.motaharulhasan@gmail.com : motaharul :
  4. email@email.em : wpadminne :

রাজশাহীতে ফেনসিডিলসহ নারী আটকের পর ফেনসিডিল বিক্রির অভিযোগ ডিবি পুলিশের বিরুদ্ধে (ভিডিও)

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২০
  • ২১৫ বার
ফেনসিডিল বিক্রির অভিযোগ ডিবি পুলিশের বিরুদ্ধে
বামে মাদক কারবারী টনি ও ডানে বাহারুল

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী নগরীর উপকন্ঠ টাংগনে বিপুল পরিমান ফেনসিডিলসহ বিলকিস (৩৫) নামের এক নারী মাদক কারবারীকে আটক করেছে মহানগর গোয়েন্দা শাখা ডিবি পুলিশের একটি দল।

বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) সকাল পৌনে ৮টার দিকে নগরীর কাটাখালি থানাধীন টাংগন উত্তর পাড়া এলাকার একটি কলাবাগান থেকে তাকে আটক করে ডিবি এসআই মাহফুজুর রহমান এএসআই জাহিদ ও সঙ্গীয় ফোর্স। এ সময় তার কাছ থেকে প্লাষ্টিকের দুই বোঝা ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। তবে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে দুইজন মাদক কারবারী পালিয়ে গেছে।

আটককৃত বিলকিস টাংগন উত্তর পাড়া এলাকার আমিনুলের স্ত্রী। পলাতক মাদক কারবারীরা হলো: একই থানার টাংগন পূর্বপাড়া এলাকার আজিজুলের ছেলে বাহারুল (৩৮) ও মৃত আসগর আলীর ছেলে টনি (২৪)।

এ বিষয়ে দুইজন মাদক কারবারীকে পলাতক দেখিয়ে নারীসহ তিন জনের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এদিকে স্থানীয়দের অভিযোগ কলাবাগানে অভিযান চালিয়ে ডিবি পুলিশের দলটি দুই বোঝায় চারশত বোতলসহ বিলকিসকে আটক করে। ওই সময় অপর দুই মাদক ব্যবসায়ী বাহালুল ও টনি পালিয়ে যায়। পরে ডিবি পুলিশ ওই এলাকার এক চিহ্নিত মাদক কারবারীর কাছে ৩৩০ বোতল ফেনসিডিল বিক্রি করে। এবং অবশিষ্ট ফেনসিডিলসহ বিলকিসকে আটক করে নিয়ে যায়। এ বিষয়ে মুঠো ফোনে জানতে চাইলে এএসআই জাহিদ জানায়, অভিযান করেছে ডিবি এসআই মাহফুজুর রহমান। ফেনসিডিল পেয়েছে ১০০ বোতল। সোর্সকে দেয়া হয়েছে ৪০ বোতল অবশিষ্ট ৬০ বোতল দিয়ে বিলকিসকে মামলা দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

মামলার ফেনসিডিল বহনকারকারী টনি জানায়, ভারত সিমান্ত থেকে দুই বোঝা ফেনসিডিল সে ও আলী হেসেন নদীতে সাঁতার দিয়ে নিয়ে আসে। পরে তারা টাংগন পশ্চিশ পাড়া কলাবাগানে ফেনসিডিল ভাগাভাগির করার উদ্দেশ্যে যায়। সেখানে ডিবি পুলিশের টের পেয়ে তারা পালিয়ে যায়।

সে আরও জানায়, ফেনসিডিল বহন করার জন্য ২০০ বোতল ( এক বোঝা) প্রতি তারা পারিশ্রমিক পায় ৪ হাজার টাকা। দুইজনের জন্য দেয়া হয়েছে ৮হাজার টাকা।

মামলার অপর আসামী মাদক কারবারী বাহারুল জানায়, ফেনসিডিলগুলি তার একার ছিলো না। এই ফেনসিডিলের মালিক আমিসহ ৪জন। অন্যান্যরা হলো: আসাদুল, তোজম্মেল হোসেন, তোজাম।

তিনি আরও বলেন, ভারতে সিমান্তে ফেনসিডিল ক্রয় করি প্রতি বোতল ৫৫০, এপারে নিয়ে এসে পাইকারী বিক্রি করি ৭০০টাকা। অন্যান্যরা খদ্দেরের কাছে খুচরা বিক্রি ৮৫০টাকা থেকে ৯০০ টাকা।

মামলার আসামী টনি ও বাহারুল ক্যামেরার সামনে সাংবাদিকদের জানায়, টাংগন পশ্চিম পাড়ার কুখ্যাত মাদক কারবারী সাথি ও মাক ডিলার লুৎফরের জামাই মিলনের কাছে ৭০০টাকা দরে ৩৩০ বোতল ফেনসিডিল বিক্রি করেছে ডিবি পুলিশ এবং ৭০ বোতলত সহ বিলকিসকে নিয়ে গেছে বলেও জানায় এই দুই কারবারী।

বাংলার বিবেক ডট কম২৬ নভেম্বর, ২০২০

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 BanglarBibek
Customized BY NewsTheme