1. admin@zzna.ru : admin@zzna.ru :
  2. md.masudrana2008@gmail.com : admi2017 :
  3. info.motaharulhasan@gmail.com : motaharul :
  4. email@email.em : wpadminne :

রাজশাহী নগরীতে পুত্রবধূর অত্যাচারে থানায় গিয়ে বিষ চাইলেন মা!

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৩৫০ বার
রাজশাহী নগরীতে পুত্রবধূর অত্যাচারে থানায় গিয়ে বিষ চাইলেন মা!
রাজশাহী নগরীতে পুত্রবধূর অত্যাচারে থানায় গিয়ে বিষ চাইলেন মা!

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বামীর রেখে যাওয়া সম্পত্তি ছেলেকে লিখে দেয়ার পর থেকেই ছেলে ওয়াকিল আহম্মদ উকিল ও তার স্ত্রী শ্যামলীর অত্যাচার সহ্য করতে হচ্ছে এক অসহায় মাকে।

নিরুপায় হয়ে সেই মা আজ দ্বারে দ্বারে চেয়ে খাচ্ছেন। শুধু তাইনা খেতে দেয়া হয় না বৃদ্ধা মাকে, কিছু হলেই বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করে তারা। এবাদেও ছেলের স্ত্রী শ্যামলী তার নিজের ভাই ও বোনদের ডেকে গালিগালাজ সহ চুলের মুঠি ধরে মারপিট করার অভিযোগ রয়েছে।

এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল (৩০ নভেম্বর) দুপুরে শ্যামলীর ভাই বাপ্পি ও গামাসহ ছোট বোন নুরমলি ও ইতি মিলে বৃদ্ধা মাকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করে করা হয়। ছেলের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সহযোগিতায় পুত্রবধূ এ সব কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে।

এঘটনায় বৃদ্ধা মা শুফিয়া খাতুন চন্দ্রিমা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। শুফিয়া খাতুন (৬৫) শিরোইল কলোনী এলাকার মৃত শফিউদ্দিনের স্ত্রী।

ভুক্তভোগী শুফিয়া খাতুন জানান, আমার দুই ছেলে এক মেয়ে, মেয়ে থাকে সিলেটে। বড় ছেলে কামাল হোসেন একজন দিনমজুর। মেজো ছেলে ওয়াকিল মাংস ব্যবসায়ী, সে নিয়মিত মাদকসেবন করে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

বিয়ে করে দুই ছেলের মা শ্যামলীকে, বিয়ের পর থেকে শ্যামলীর আচার আচারনে পরিবর্তন দেখা দেয়। এছাড়া আমি অসুস্থ শরীর নিয়ে খুব একটা বাড়ি থেকে বের হতে পারিনা। ছেলে ও তার স্ত্রী আমাকে খাবারতো দূরের কথা পুত্রবধূ তার ভাই বোনদের ডেকে এনে আমার ওপর চালায় নির্যাতন।

ওয়াকিলকে জমি রেজিষ্ট্রী দেয়ার সময় ছেলে ও তার স্ত্রী শ্যামলীর সাথে আমার ১০০ টাকার তিনটি স্ট্যাম্পে চুক্তি হয়। চুক্তিনামায় বলা আছে আমি যতদিন জীবিত থাকবো, ছেলে হিসাবে আমার ভোরণ পোষণ সে চালাইবে, এবং আমার দানকৃত সম্পত্তির ওপর একটি ঘর আমার ব্যবহারের জন্য ভোগদখল করিব।

ইহা সর্তেও আমার দানকৃত সম্পত্তি, পরের কাছে বিক্রি করে আমাকে ঘর থেকে বের করেদিবে বলে তার স্ত্রী শ্যামলী ও তার ভাই-বোন মিলে আমার ঘড় থেকে বের করার চেষ্টা করছে।

আজ সেই ছেলে ও তার স্ত্রী শ্যামলী আমাকে কথায় কথায় মারপিট করে, খেতে দেয় না, কিছু হলেই বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়, আমার আর বাঁচার কোনও ইচ্ছা নেই, আপনারা আমাকে একটু বিষ কিনে দেন।’ এভাবেই বিলাপ করছিলেন অসুস্থ শুফিয়া খাতুন।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, শ্যামলী একজন ধুধর্ষ সুদ ব্যবসায়ী, সুদের টাকা নিয়ে প্রায় মানুষের সাথে ঝগড়া বিবাদ করে। এছাড়া তার স্বামীকে রেখে দিনের পর দিন রাতেরপর রাত হিলি বর্ডারে চোরায় পথে ইন্ডিয়ান মালামাল নিয়ে রাজশাহী আসত। এবাদেও আইপিএলসহ টিটুয়েন্টি ক্রিকেট খেলায় জুয়া খেলার শখ তার আগে থেকেই। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় এক ছেলে বলেন, আমি শ্যমলীর কাছে ৭০ হাজার টাকা পাবো।

এ টাকা সে আইপিএল জুয়াতে হেরেছে। টাকা চাইতে গেলে আমাকে উল্টা গালিগালাজসহ হাসুয়া নিয়ে তারে।
মঙ্গলবার (০১ ডিসেম্বর) রাতে চন্দ্রিমা থানায় গিয়ে ছেলের স্ত্রী শ্যামলী, শ্যালক বাপ্পি, সালিকা নুরমলি ও ইতির বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ দায়ের করেন তিনি।

ছেলের স্ত্রীর নির্যাতন সইতে না পেরে তিনি থানায় এসে অভিযোগ দায়ের করেছেন এই মা। বিলাপ করতে করতে থানায় উপস্থিত হন এ বিধবা নারী। এরপর থানায় গিয়ে পুলিশের কাছে ছেলের নির্যাতনের বর্ণনা দিয়ে বিষ চেয়েছেন এ হতভাগা মা।

এ সময় উপস্থিত লোকজনকে তিনি বলেন, ‘আপনারা আমাকে একটু বিষ কিনে দেন। আমি আর ঘরে ফিরতে চাই না। বাড়িতে গেলে ছেলের স্ত্রী যদি জানতে পারে যে- তাদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছি, তাহলে আমাকে আর জ্যান্ত রাখবে না।’

এ ব্যাপারে চন্দ্রিমা থানার ওসি তদন্ত মো: মাইনুল ইসলাম জানান, শুফিয়া খাতুনের কাছ থেকে তার ছেলের স্ত্রীসহ তার ভাই-বোনদের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। সংশ্লিষ্ট তদন্ত কর্মকর্তাকে বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বাংলার বিবেক.ডট কম-০১ ডিসেম্বর ২০২০

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 BanglarBibek
Customized BY NewsTheme