1. md.masudrana2008@gmail.com : admi2017 :
  2. info.motaharulhasan@gmail.com : motaharul :

কমিটি গঠনে তোড়জোড়, চলছে জোর তদবির

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ২৮৭ বার

অনলাইন ডেস্ক : রাজধানীর অদূরে গাজীপুর মহানগর বিএনপির কমিটিকে গুরুত্বপূর্ণ ইউনিট হিসেবে বিবেচনা করা হয়। তাই দলের হাইকমান্ডের নির্দেশে গতিশীল নেতৃত্ব তৈরি করতে কমিটি পুনর্গঠন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। স্বল্প সময়ের মধ্যে নতুন কমিটি গঠনে চলছে তোড়জোড়। ইতিমধ্যে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দায়িত্বশীল নেতাদের নিয়ে তিনটি বৈঠকও করেছেন। স্কাইপিতে যুক্ত হয়ে কমিটি গঠনের দিক-নির্দেশনাও দিয়েছেন তিনি। এদিকে কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া শুরুর সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ পদ বাগিয়ে নিতে শুরু হয়েছে জোর তদবিরও।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, চলতি মাসের শেষদিকে ৪১ অথবা ৫১ সদস্যবিশিষ্ট গাজীপুর মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হবে। সেভাবেই দলের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা কাজ করছেন। মহানগরীর রাজনীতিতে সক্রিয় সিনিয়র নেতাদের কমিটিতে রেখেই নতুনদের পদায়ন করার বিষয়ে আলোচনা হচ্ছে। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দায়িত্বশীল নেতাদের এমন নির্দেশনাই দিয়েছেন। এ ছাড়া গাজীপুরে গ্রুপিং রাজনীতির অবসান ঘটাতে সবার সঙ্গে সমন্বয় করেই কমিটি ঘোষণার নির্দেশনাও রয়েছে।

২০১৮ সালের ২৯ আগস্ট সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হাসান উদ্দিন সরকারকে আহ্বায়ক এবং গাজীপুর জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক শিল্পপতি মো. সোহরাব উদ্দিনকে যুগ্ম আহ্বায়ক করে কমিটি হয়। পরে এক মাসের মধ্যে হাসান উদ্দিন সরকারকে সভাপতি এবং সোহরাব উদ্দিনকে সাধারণ সম্পাদক করে ১৫১ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। সম্প্রতি নতুন কমিটি গঠন নিয়ে শুরু হয় আলোচনা। স্কাইপিতে তারেক রহমানের উপস্থিতির মাধ্যমে দলের ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম, শহিদুল ইসলাম বাবুলসহ মহানগরীর নেতাদের নিয়ে বৈঠক করা হয়। ‘সুপার ফাইভ’সহ কয়েক দফা বৈঠকের পর আহŸায়ক কমিটি গঠনে তালিকা করার জন্য দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এবং ফজলুল হক মিলনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। এ ছাড়া তারেক রহমান নিজেও খোঁজখবর নেবেন। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে আছেন। তিনি দেশে ফিরলেই কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে জানা গেছে।

গাজীপুর মহানগর বিএনপি কমিটিতে আহ্বায়ক পদে আলোচনায় রয়েছেন- বর্তমান কমিটির সভাপতি হাসান উদ্দিন সরকার, সাধারণ সম্পাদক সোহরাব উদ্দিন, শ্রমিক দল নেতা সালাহউদ্দিন সরকার। এ ছাড়া সদস্য সচিব পদে শওকত হোসেন হিরণ, ভাওয়াল বদরে আলম সরকারি কলেজের সাবেক জিএস সুরুজ আহম্মেদ, ২৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সির ও সাবেক ছাত্রনেতা হান্নান মিয়া হান্নু আলোচনায় আছেন। এ ছাড়া গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র অধ্যাপক এম এ মান্নানের ছেলে এম মঞ্জুরুল করিম রনিও আলোচনায় রয়েছেন। মান্নানের অনুসারীরা রনিকে পদায়নে জোর লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন। স্থানীয় নেতাকর্মীরা সভা করে বিএনপির দায়িত্বশীল নেতাদের কাছে রনিকে সদস্য সচিব করার বিষয়ে চিঠি দিয়েছেন।

জানতে চাইলে ঢাকা বিভাগীয় কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ দৈনিক খোলা কাগজকে বলেন, গাজীপুর মহানগর বিএনপির কমিটি পুনর্গঠনের বিষয়ে আলাপ-আলোচনা চলছে। সবার সমন্বয়ে একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হবে। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের নির্দেশেই স্বল্প সময়ের মধ্যেই তা ঘোষণা করা হবে।

তিনি জানান, আন্দোলন-সংগ্রামে যারা রাজপথে ছিলেন তাদের নিয়েই নবীন-প্রবীণদের সমন্বয় করে কমিটি গঠন করা হবে।
গাজীপুর মহানগর বিএনপির সভাপতি হাসান উদ্দিন সরকার দৈনিক খোলা কাগজকে বলেন, মহানগরীতে ৫৭টি ওয়ার্ড এবং ৮টি থানায় সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি গঠন করা হয়েছে। আমরা নানা প্রতিবন্ধকতা মোকাবিলা করে মাঠে সক্রিয় কর্মসূচি পালন করে আসছি। করোনাকালে আমি নেতাকর্মীদের নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি।

তিনি বলেন, কমিটি পুনর্গঠন চলমান প্রক্রিয়া। আমাদের দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দক্ষ নেতৃত্বে গাজীপুর মহানগর ছাত্রদল, যুবদলসহ সব অঙ্গ সংগঠন অনেক বেশি শক্তিশালী। মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। আমি সম্মেলনের মাধ্যমে একটি সুন্দর কমিটি গঠনের মধ্য দিয়ে দায়িত্ব থেকে সম্মানে বিদায় নিতে চাই।

এ ছাড়া মহানগর কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক শওকত হোসেন সরকার দৈনিক খোলা কাগজকে বলেন, কমিটি গঠন নিয়ে আলোচনা চলছে। গতিশীল নেতৃত্ব তৈরিতে কমিটি পুনর্গঠন জরুরি। এতে নবীনরা পদায়নের সুযোগ পান।

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র অধ্যাপক এম এ মান্নানের ছেলে এম মঞ্জুরুল করিম রনি দৈনিক খোলা কাগজকে বলেন, গাজীপুরের সিনিয়র নেতাদের বড় একটা অংশ আব্বার (এম এম মান্নান) সঙ্গে আছেন। তারা সভা করে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আমাকে উনারা গাজীপুর মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব হিসেবে চান।

তিনি বলেন, মহানগর বিএনপির বিশাল একটা অংশ বাবার অনুসারী। এটা কাজে লাগিয়ে গতিশীল নেতৃত্ব দিতে চাই। আশা করি, দল আমাকে সেই সুযোগ করে দেবে।

বাংলার বিবেক ডট কম – ১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 BanglarBibek
Customized BY NewsTheme