1. md.masudrana2008@gmail.com : admi2017 :
  2. info.motaharulhasan@gmail.com : motaharul :
শিরোনাম :
শিরোনাম :

ওটিটি নিয়ন্ত্রণে পরিকল্পনা!

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৬ মার্চ, ২০২১
  • ২১৮ বার

অনলাইন ডেস্ক : দেশে বিপুল জনপ্রিয় ভাইবার, মেসেঞ্জার, ইমো, উইচ্যাট, লাইনের মতো যোগাযোগনির্ভর ওটিটি (ওভার দ্য টপ স্ট্রিমিং) অ্যাপস সার্ভিস। জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ব্যবসা করে দেশ থেকে অর্থ নিয়ে যাচ্ছে তারা। অথচ ওটিটি সার্ভিসকেন্দ্রিক দেশে কোনো নীতিমালা না থাকায় তাদের ওপর নেই নিয়ন্ত্রণ। অন্যদিকে দেশে এসব সার্ভিসের কোনো যোগাযোগ পয়েন্টও নেই। ফলে সরকার তার রাজস্ব হারাচ্ছে। এবার ওটিটি প্ল্যাটফর্ম থেকে তাই রাজস্ব আদায়ের পরিকল্পনা করেছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। নেটফ্লিক্স, অ্যামাজন প্রাইম, জি-ফাইভ ইত্যাদির মতো ওটিটি প্ল্যাটফর্ম নিয়ন্ত্রণে রাখতে উচ্চ আদালতের নির্দেশনায় এসব প্ল্যাটফর্ম থেকে আপত্তিকর কনটেন্ট অপসারণ ও খসড়া নীতিমালা প্রণয়নের উদ্যোগ নিয়েছে বিটিআরসি। এরই মধ্যে বিটিআরসি এ বিষয়ক একটি কমিটি গঠন করেছে।

সূত্র বলছে, বিটিআরসি আদালতে যে প্রতিবেদন জমা দেয় তাতে বলা হয়, নেটফ্লিক্স, অ্যামাজন, হইচই, বঙ্গ’র মতো প্ল্যাটফর্ম থেকে দেশে কোনো রাজস্ব আদায় হয় না। কোনো ধরনের রেগুলেশন না থাকায় সেটি আদায় হচ্ছে না। একই কথা প্রযোজ্য যোগাযোগনির্ভর ওটিটি অ্যাপসের বেলায়ও। নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি সব ধরনের ওটিটি অ্যাপস থেকে রাজস্ব আদায়ের পরিকল্পনা করছে।

জানা গেছে, গত বুধবার বিটিআরসির ওটিটি গাইডলাইনের খসড়া তৈরি সংক্রান্ত কমিটির প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই বৈঠকে কমিটি কীভাবে কাজ করবে, কোন দেশে কীভাবে হয়, কোন কোন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা আছে, প্রয়োজনে সেসব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হবে- সেসব বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়।

কমিটির চেয়ারম্যান লিগ্যাল ও লাইসেন্সিং বিভাগের কমিশনার আবু সৈয়দ দিলজার হোসেন জানান, আমরা কয়েকটা দেশের ওটিটি গাইডলাইন পর্যালোচনা করে দেখব তাদের প্র্যাকটিসটা কী। আমরা কয়েকটা গাইডলাইন পর্যালোচনা করে বেস্ট প্র্যাক্টিসটাই করব। আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী তারা কাজ করেছেন বলে তিনি জানান।

জানা গেছে, দেশে বিপুল জনপ্রিয় বিদেশি ওটিটি স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম নেটফ্লিক্স, আইফ্লিক্স, হইচই, অ্যামাজন প্রাইম জি-ফাইভ ইত্যাদি। আর দেশিগুলোর মধ্যে আছে বঙ্গ, বিঞ্জে, বাংলাফ্লেক্স, বায়োস্কোপ, সিনেম্যাটিক ইত্যাদি। দেশিগুলোতে কী ধরনের কনটেন্ট আছে তা সহজে নিয়ন্ত্রণ, নজরদারি করা এবং সেসব থেকে রাজস্ব আয়ের পথ সুগম হলেও যোগাযোগনির্ভর অ্যাপে তা মোটেও সহজ নয়। ভাইবার, মেসেঞ্জার, ইমো, উইচ্যাট, লাইনের মতো যোগাযোগনির্ভর ওটিটি সার্ভিস এ দেশ থেকে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে অর্থ আয় করলেও সরকারের প্রাপ্তি শূন্য। বিটিআরসি গঠিত কমিটি এইসব বিষয়ে দেখভাল, খসড়া নীতিমালা তৈরি ইত্যাদি কাজ করবে বলে জানা গেছে।

বাংলার বিবেক /এম এস

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরীর আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 BanglarBibek
Customized BY NewsTheme